সোমবার, ১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৪.৪°সে
সর্বশেষ:
ভূমধ্যসাগর থেকে ৩২ বাংলাদেশি উদ্ধার ইরানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে নিহত ৫ বাংলাদেশে এসডিজি বাস্তবায়নে অর্থের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান কুকুরের মাংস দিয়ে বিরিয়ানি বিক্রি, মালিক আটক উত্তীর্ণ হচ্ছেন সাত কলেজের অকৃতকার্য শিক্ষার্থীরা আমেরিকা-কানাডায় সাড়া ফেলেছে বাংলাদেশি চিকিৎসা বিজ্ঞানী ডা. মুনির হোসেনের বই বাংলাদেশির উদ্যোগে মালদ্বীপে কৃষি বিদ্যালয় উদ্বোধন ইউক্রেনের তিন যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার দাবি রাশিয়ার বাজারের ব্যালেন্স ঠিক রাখার জন্যই সরকার ধান চাল কেনেন – খাদ্য মন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন লক্ষে সুনামগঞ্জ যুবলীগের নানা কর্মসূচি সুনামগঞ্জ কুশিয়ারা নদীতে ৩ দিন ধরে ফেরি চলাচল বন্ধ, দুর্ভোগ চরমে কুসিক নির্বাচন: আচরণবিধি দেখার জন্য ৩ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।।নগরীতে বিজিবি মোতায়েন

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে ২২ জেলার ফল প্রকাশ

অনলাইন ডেস্ক:

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন ‘সরকারি বিদ্যালয়ে রাজস্বখাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০২০’ এর লিখিত পরীক্ষার প্রথম ধাপের ২২ জেলার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) ৪০ হাজার ৮৬২ জন প্রার্থীকে লিখিত পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তুহিন এ তথ্য জানিয়েছেন। লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে (www.dpe.gov.bd) এ পাওয়া যাবে।

গত ২২ এপ্রিল চাপাইনবাবগঞ্জ, মাগুরা, শেরপুর, গাজীপুর, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, মাদারীপুর, মুন্সিগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চট্টগ্রাম, মৌলভীবাজার, লালমনিরহাটের সম্পূর্ণ এবং সিরাজগঞ্জ, যশোর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, টাংগাইল, কুমিল্লা, নোয়াখালী জেলার আংশিক অংশের লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়।

ফলাফল প্রকাশের নির্দেশনায় বলা হয়, এই ফলাফল সাময়িক ফলাফল হিসেবে গণ্য হবে। এ ফলাফলের ভিত্তিতে নির্বাচিত প্রার্থীরা কেবল মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এ ফলাফল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ‘রাজস্বখাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০২০ এর’ কোনো শূন্য পদে নিয়োগের জন্য কোনো নিশ্চয়তা করবে না।

প্রকাশিত ফলাফলের যে কোনো পর্যায়ে কোনো প্রকার ভুল-ভ্রান্তি, ত্রুটি-বিচ্যুতি, মুদ্রণজনিত ত্রুটি পরিলক্ষিত হলে তা সংশোধন করার বা প্রয়োজনবোধে সংশ্লিষ্ট ফলাফল বাতিল করার এখতিয়ার কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।

কোনো প্রার্থী ইচ্ছাকৃতভাবে কোনো ভুল তথ্য দিলে কিংবা কোনো তথ্য গোপন করেছেন মর্মে প্রতীয়মান বা প্রমাণিত হলে কর্তৃপক্ষ তার ফলাফল বা নির্বাচন বাতিল করতে পারবে।

প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নিয়োগ বিধিমালা, ২০১৯ অনুসরণপূর্বক নিয়োগের জন্য চূড়ান্তভাবে প্রার্থী নির্বাচন করা হবে। মৌখিক পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় পরবর্তীতে যথাসময়ে জানানো হবে।

মন্ত্রণালয় জানায়, সহকারী শিক্ষক পদে ৪৫ হাজার জন নিয়োগ করা হবে। এসব পদের বিপরীতে আবেদন করেছেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন প্রার্থী। সেই হিসেবে প্রতি পদের জন্য লড়ছেন ২৯ প্রার্থী। দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষা আগামী ২০ মে এবং ৩ জুন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন জেলায় অনুষ্ঠিত হবে।

Publication of results of 22 districts for appointment of primary teachers

Online Desk:

The results of 22 districts of the first phase of the written examination of ‘Assistant Teacher Recruitment-2020’ registered in the government sector under the Department of Primary Education have been published.

On Thursday (May 12), 40,072 candidates were selected for the oral examination on the basis of the results of the written examination. Mahbubur Rahman Tuhin, Public Relations Officer of the Ministry of Primary and Mass Education said this. The results of the written test can be found on the website of the Department of Primary Education (www.dpe.gov.bd).

On 22 April, Chapainawabganj, Magura, Sherpur, Gazipur, Narsingdi, Manikganj, Dhaka, Madaripur, Munshiganj, Laxmipur, Feni, Chittagong, Moulvibazar, Lalmonirhat and Sirajganj, Jessore, Mymensingh, Netrokona, Kishoreganj, part of Kishoreganj Written test is taken.

These results will be considered as temporary results. Candidates selected on the basis of these results can only participate in the oral examination. This result will not provide any guarantee for the appointment of any vacant post in the Government Primary School’s ‘Recruitment of Assistant Teachers in the Revenue Department-2020’.

The Authority reserves the right to correct any errors, omissions, typographical errors in any of the published results at any stage, or to cancel the relevant results if necessary.

If a candidate intentionally gives wrong information or if it appears or is proved that he has concealed any information, then the authority can cancel his result or election.

On the basis of the marks obtained by the candidates in the written examination and the marks obtained in the oral examination, the candidates will be finally selected for the recruitment following the Government Primary School Recruitment Rules, 2019. The place, date and time of oral examination will be informed in due course.

According to the ministry, 45,000 people will be appointed as assistant teachers. 13 lakh 9 thousand 461 candidates have applied against these posts. As such, 29 candidates are fighting for each post. The written test of the second and third phase will be held on May 20 and June 3 from 10:30 am to 12 noon in different districts.

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

বাংলাদেশে এসডিজি বাস্তবায়নে অর্থের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান
কুকুরের মাংস দিয়ে বিরিয়ানি বিক্রি, মালিক আটক
উত্তীর্ণ হচ্ছেন সাত কলেজের অকৃতকার্য শিক্ষার্থীরা
বাজারের ব্যালেন্স ঠিক রাখার জন্যই সরকার ধান চাল কেনেন – খাদ্য মন্ত্রী
শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন লক্ষে সুনামগঞ্জ যুবলীগের নানা কর্মসূচি
সুনামগঞ্জ কুশিয়ারা নদীতে ৩ দিন ধরে ফেরি চলাচল বন্ধ, দুর্ভোগ চরমে

আরও খবর


close