রবিবার, ১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২২.৩৭°সে

মুনিয়া, এখনও জিতে আছে মানুষ

Mashuk Althaf Choudhury এবং দাড়ি-এর একটি ছবি হতে পারেমাসুক আলতাফ চৌধুরী
এখনও মানুষই জিতে আছে ,সাধারণ মানুষ-জনতা। মুনিয়া, জীবন-সংগ্রাম প্রতিবাদে বেছে নিয়েছ মৃত্যু, না এখানেই শেষ নয়। মেনে নেয়নি মানুষ। সংঘবদ্ধ মত প্রকাশ এখন ভিন্নতর- যোগাযোগের সামাজিক মাধ্যম। এতে কেটে গেছে আগের একমূখীতা। মূলধারার মাধ্যম যা বলতো, তাই সর্বাঙ্গে মেনে নেয়া, এখন আর নয়-এখন শুনতেও হয়। বলা চলে সামাজিক মাধ্যমকেও কখনও কখনও অনুসরন করতে হচ্ছে মূলধারা মাধ্যমকে। এ দু’য়ের বোঝাপড়া বেশ চলছে। এখানেও এখনও জিতে আছে মানুষ। মুনিয়া, সবার না মানা- সংক্ষুব্ধতা এক লক্ষ্যে এগুচ্ছে। প্রতিবাদের সুনামি চলছে। প্রধান গণমাধ্যম পুঁজির পাহারাদার –হাতিয়ার হওয়ায় প্রথম নিশ্চুপ পরে লুকোচুরি -অভিযুক্ত ও তাঁর প্রভাব বলয়ের এ চেষ্টাতো থাকবেই। দমে থাকেনি মানুষ, পিছু নিয়েছে সর্বত্র।
জীবনের শেষ ঘটেছে দুপুর-বিকালে। সন্ধ্যায় হয়েছে জানাজানি-কানাঘুষা। হতবিহ্বল বড়বোন-বোনজামাই শোক সামলে কিংকর্তব্যবিমূঢ়। স্বজন হারানোর কান্না ধীরলয়ে প্রতিবাদী হয়ে উঠে। রাতভর থানায় দৌড়ঝাঁপ। সাংবাদিক আসেন-যান, কিন্তু নেই সেভাবে সংবাদ প্রচার। এধরনের সংবাদ অবশ্য নিজ থেকে প্রচারিত হয় না । দায়িত্বশীল প্রচারে পক্ষতা লাগে। এতে যথার্থতা দাঁড়ায়। সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গভীর রাতে মামলা হলো। যাক এবারতো হয়েছে। পরদিন সকাল-দুপুরে মূলধারা মাধ্যম অস্পস্টতায় ক্ষীণ উচ্চারণে প্রচার করল। পুঁজির সাথে লড়াই, সংঘর্ষ এড়াতে চাইলো। মানুষ আশাহত হলো। মানুষের ক্ষোভ আপোষ-রফা রুখে দিয়ে ,আইনের দ্বারস্থ –মামলায় বাধ্য করলো। একেবারে নিজেদের মালিকানাধীন মাধ্যমগুলোর নির্লিপ্ততায় -জনতার ক্ষোভ ,ব্যক্তি আক্রোশে ফেটে পরে। চতুর পুলিশ আইনী দৃঢ়তায় কথা বলা শুরু করলেন । মূলধারা মাধ্যম জনরোষ উপলব্দি শুরু করলো। বিচ্যুতি কাটিয়ে স্বভাব সুলভ -মানুষের পক্ষেই দাঁড়ালো। এমনি হয়। সংবাদ আর মানুষ-এ দু’য়ের এটি চিরায়াত রসায়ন। মতদ্বৈততা হলেও সম্পর্কের একটা জায়গা তৈরি হয়ে যায়- এটাই গণমুখীতা।
মানুষ থেমে নেই। এবার মানুষের দৃঢ় অবস্থান আদালতের ন্যায়পরতার প্রভাবক হলো । আগাম জামিন অধিকার হলেও শুনলেন না মাননীয় বিচারকরা । জনগণ আবারও জিতে গেল। অভিযুক্ত (এক বা অধিক ) আইনের আওতায় আসছে-এমন ইঈিতই দিচ্ছে পুলিশ। প্ররোচনার ক্ষেত্রে অভিপ্রায়-দুষ্টুমন ছিল প্রমানে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহে কাজ করছে তাঁরা । স্বেচ্ছায় ভাড়া বিমানে দেশ ছাড়তে হল পরিবার-পরিজনের। পুঁজি মানুষের কাছে নতজানু হলো আবারও।
মানুষ দেখতে চায় পুলিশ হাতকড়া পরিয়ে অভিযুক্তকে (এক বা অধিক ) নিয়ে বিচারালয়ে ছুটোছুটি করছে। মানুষকে জেগে থাকতে হবে আশানুরুপ দন্ড হওয়া পর্যন্ত। এক্ষেত্রেও কখনও মানুষ, আবার কখনও সাংবাদিকতা-কেউ আগে আবার কেউ পিছু পিছু – এভাবেই চলবে বরাবরের মতই।
লেখক-সাংবাদিক, কুমিল্লা ৩০ এপ্রিল ২০২১ (তথ্য সূত্র-ফেইসবুক )

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

ইফতার ও সেহরিতে স্বাস্থ্যসম্মত খাবার: কিছু পরামর্শ
রমজানে হৃদ রোগীর স্বাস্থ্য সুরক্ষা
সুনামগঞ্জের আলোক বাতি ।। সাংবাদিকতার এক দিকপাল হাসান শাহরিয়া
সাংবাদিকতার সোনালী ভবিষ্যৎ, প্যাশন এবং প্রফেশনের যুগলবন্দী
করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে স্বাস্থ্যবিধি মানতেই হবে
যুগে যুগে যুদ্ধ সাংবাদিকতা

আরও খবর