সোমবার, ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৭.৬২°সে

আইসিইউতে কাজী হায়াৎ, শবনম-আজিজের উদ্বেগ

প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা-অভিনেতা-প্রযোজক কাজী হায়াতের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তার ফুসফুস। এ কারণে রবিবার বিকাল থেকে তিনি ধানমন্ডির পপুলার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) আছেন।
তাকে আইসিইউতে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার ছেলে চিত্রনায়ক কাজী মারুফ।
তিনি জানান, কাজী হায়াতের শারীরিক অবস্থার জটিল হওয়ায় তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। চিকিৎসকরা তার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছেন।
গত ১৫ মার্চ থেকে ৭৪ বছর বয়সী এই নির্মাতা হাসপাতালে ভর্তি আছেন। সেখানে তার স্ত্রীও রয়েছেন।
কাজী মারুফ বলেন, ‘মায়ের শরীর উন্নতির দিকে থাকলেও বাবার অবস্থা ভালো নয়। করোনায় উনার ফুসফুসের ৪০ শতাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রবিবার বাবার অবস্থা একটু বেশি খারাপ হয়। অক্সিজেন ২০ লিটার লেগেছে। আগে এতটা লাগতো না।’
এদিকে ‘দি ফাদার’খ্যাত নির্মাতা কাজী হায়াৎ এর অসুস্থার সংবাদে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন খ্যাতিমান নির্মাতা আজিজুর রহমান এবং ‘আম্মাজান’খ্যাত অভিনেত্রী শবনম। কানাডা থেকে দেশের জেষ্ঠ্য নির্মাতা আজিজ বলেন, হায়াৎ আমার খুবই ঘনিষ্ঠ একজন মেধাবী পরিচালক। দেশের প্রতি ওর কমিটমেন্ট দর্শক মনে রেখেছে বলেই রাজনৈতিক অ্যাকশনধর্মী ছবিগুলো হিট হতো। হায়াৎ ইন্ডাস্ট্রির সম্পদ। আমি প্রত্যাশা করছি সরকার হায়াতের চিকিৎসায় যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। উদ্বেগ প্রকাশ কওে শবনম বলেন, তিনি আমার অভিনীত শেষ ছবির নির্মাতা এবং আমাকে অন্যরকম মর্যাদার আসনে পৌঁছে দিয়েছেন। সর্বশেষ করোনার পিক টাইমে জায়েদের ফোনে তার সঙ্গে কথা হয়েছিলো। আমি তার সুস্বাস্থ্য কামনা করছি।
গত ৮ মার্চ কাজী হায়াৎ স্ত্রীসহ করোনা পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হন। এরপর বাসাতেই ছিলেন তারা। তবে অসুস্থতা বাড়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

চিরঘুমে চিত্রনায়িকা কবরী
কবরী লাইফ সাপোর্টে
অবশেষে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে আইসিইউ পেলেন কবরী
অভিনেতা ফারুক জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে, দোয়া চেয়েছেন ছেলে
লাইফ সাপোর্টে চিত্রনায়ক ফারুক
অভিনেত্রীর নখের আঁচড়ে শাকিব খান আহত, শুটিং স্থগিত

আরও খবর