বৃহস্পতিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৭.৭৬°সে

ময়মনসিংহের নান্দাইলে ইজারাবিহীন বালু উত্তোলন

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা:

ময়মনসিংহের নান্দাইলে ইজারাবিহীন বালু উত্তোলন করে প্রকাশ্যেই রাখা হচ্ছে স্তূপাকারে। সেখান থেকে ট্রাক্টর ভর্তি করে নিয়ে যাচ্ছে। জানতে পারলে প্রশাসন অভিযান চালায় থেমে থেমে। আর ওই সময় ড্রেজার, ভেকুসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতিও জব্দ করা হয়।

আটক করা হয় বহনকারী যানবাহন ও শ্রমিকদের, কিন্তু থেমে থাকেনি বালু উত্তোলন। যেন চোর-পুলিশ খেলা। দিনের শেষদিকে শুরু করে রাতভর নদের বুক চিড়ে নিয়ে যাচ্ছে শত শত ট্রাক্টর ভর্তি করে বালু।

অসাধু বালু ব্যবসায়ীরা রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ও অনেককে ম্যানেজ করে এই অবৈধ খেলায় মেতে উঠেছেন। এ ঘটনা ঘটছে উপজেলার চরবেতাগৈর ইউনিয়নের চরভেলামারী এলাকায়।

প্রভাবশালীদের আশকারা পেয়ে বালু উত্তোলন হচ্ছে। এ অবস্থায় সারা বছরই ব্রহ্মপুত্র নদে চলে ভাঙনের তাণ্ডব। দিনের পর দিন জনবসতি, বাড়িঘর ও ফসলি জমি নদীগর্ভে যাচ্ছে। প্রভাবশালীদের ভয়ে কথা বলতে পারছে না এলাকাবাসী।

ব্রহ্মপুত্র নদের পূর্ব পারে নান্দাইল ও পশ্চিম পারে ত্রিশাল উপজেলা। সরেজমিন দেখা যায়, নদেরপাড় পর্যন্ত বিস্তৃত নান্দাইল উপজেলার চরভেলামারী গ্রাম। গ্রামটিকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য নদেরপাড়ে রয়েছে বেড়িবাঁধ। বেড়িবাঁধের অনেকটা নিচ থেকে সমতল চর ভেকু দিয়ে কেটে বালু বিক্রি করা হচ্ছে।

চরভেলামারী গ্রামের বেশ কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দিনের বেলা ট্রাক্টরে করে বালু পরিবহন করা হয়। সন্ধ্যার পর থেকে ড্রাম ট্রাক এ কাজ করে।

নদের চরে যাওয়ার সময় কথা হয় ট্রাক্টর চালক সুমনের সঙ্গে। তিনি বলেন, স্যার, আমি ভাড়ায় ট্রাক্টর চালাই।

কারা আপনাকে ভাড়া করেছে জানতে চাইলে সুমন বলেন- আমার পেডে লাথি দেইন না যে।

ঘাট থেকে অনেকটা দূরে তাকিয়ে দেখা যায়, বালুবোঝাই অনেকটি ট্রাক্টর পারের দিকে আসছে। তবে তারা কেউ কথা বলতে রাজি হয়নি। ইশারা দিলেও তাদের কেউ ট্রাক্টর থামায়নি।

এ সময় ছাতা মাথায় এগিয়ে আসেন মো. শমসের আলী (৪৫) নামের এক ব্যক্তি। তিনি চরভেলামারী গ্রামের বাসিন্দা ও নিজেকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি বলে দাবি করেন।

শমসের আলী বলেন, ‘ভাই, এসব নিয়ে পত্রিকায় লেখালেখি করার কী দরকার। আমরা কিছু একটা করে খাচ্ছি তাতে আপনাদের সমস্যা হওয়ার কথা নয়। চাইলে আপনারাও পাবেন। অনেককেই তো ম্যানেজ করা হচ্ছে।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ওই অঞ্চলের দুটি হত্যা মামলার বেশ কয়েকজন অভিযুক্তসহ (জামিনে মুক্ত) স্থানীয় সরকার দলীয় নেতা ও পাশের গফরগাঁও উপজেলার বেশ কয়েকজন বালু ব্যবসায়ী এই কর্মের সঙ্গে জড়িত। তারা নাকি সব ম্যানেজ করেই নির্বিঘ্নে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছেন। প্রতিদিন নিজেদের পকেটে ভরছেন লাখ লাখ টাকা। অথচ নেই কোনো ধরনের সরকারি ইজারা।

এ বিষয়ে নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আবুল মনসুর বলেন, যখন বালু উঠানোর খবর পাওয়া যায় তখনই সেখানে অভিযান চালানো হয়।

Unlicensed sand extraction at Nandail in Mymensingh

Nandail (Mymensingh) Correspondent:

In Nandail, Mymensingh, unlicensed sand is being extracted and kept in piles in public. From there the tractor is being loaded and taken away. When he found out, the administration stopped the operation. At that time dredgers, vacuums and other equipments were also seized.

Vehicles and workers were detained, but sand extraction did not stop. Like a thief-cop game. Starting at the end of the day, hundreds of tractors loaded with sand are carrying the river across the river overnight.

Unscrupulous sand traders have become involved in this illegal game by exerting political influence and managing many. The incident took place in Charvelamari area of ​​Charbetagair union of the upazila.

Sand is being extracted after getting exposure of influential people. In this situation, the river Brahmaputra is flooded all year round. Day after day settlements, houses and crop lands are going under the river. Locals are unable to speak for fear of influential people.

Nandail on the east bank of Brahmaputra river and Trishal upazila on the west bank. It can be seen on the ground that Charvelamari village of Nandail upazila extends up to Naderpar. There are embankments on the river bank to protect the village. Sand is being sold by cutting a flat char veku from the very bottom of the embankment.

Speaking to several residents of Charvelamari village, it is learned that sand is transported by tractor during the day. Works on drum trucks since evening.

Talking to the tractor driver Sumon while crossing the river. He said, “Sir, I rent a tractor.”

When asked who hired you, Sumon said, “Don’t kick me in the foot.”

Looking far away from the ghat, it can be seen that many tractors carrying sand are coming towards the shore. However, none of them agreed to talk. Despite the signal, none of them stopped the tractor.

At the time, the umbrella came forward. A man named Shamser Ali (45). He is a resident of Charvelamari village and claims to be the president of ward Awami League.

Shamser Ali said, ‘Brother, what is the need to write about all this in the newspaper. We’re not going to have a problem with eating something. If you want, you will also get. Many are being managed.

It is learned that several accused in two murder cases in the area (released on bail), local government party leaders and several sand traders from neighboring Gafargaon upazila were involved in the operation. Or they are managing everything and extracting sand without any hindrance and selling it. They are filling their pockets with lakhs of rupees every day. But there is no government lease.

In this regard, Nandail Upazila Nirbahi Officer (UNO) Mohammad Abul Mansur said that the operation was carried out only when the news of sand extraction was received.

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

জাতিসংঘ প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বিএনপির বৈঠক
গার্ডার দুর্ঘটনা: ক্রেনচালকসহ ৯ জন গ্রেফতার
শৈলকুপায় হাতুড়িপেটা করে হত্যা : ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড
সাংবাদিককে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ
বাংলাদেশে স্বর্ণের দাম কমলো
বাংলাদেশ সংকটের মধ্যে নেই: আইএমএফ

আরও খবর


close