রবিবার, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৩.২৯°সে
সর্বশেষ:
দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী হলুদ সাংবাদিকতা প্রতিরোধ ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা শীর্ষক সুনামগঞ্জে গণমাধ্যমকর্মীদের নিয়ে কর্মশালা আফগানিস্তানে তুমুল বর্ষণে নিহত আরো ২৯ নিউইয়র্কে আদালতের সামনে গায়ে আগুন দেওয়া ব্যক্তির মৃত্যু গরমে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাসও বন্ধ ঘোষণা লাইভ সংবাদ পাঠের সময় গরমে অজ্ঞান সংবাদ পাঠিকা অনিবন্ধিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের ঘোষণা ৬ সন্তানের জন্ম, আনন্দে আত্মহারা মা-বাবা খুলনায় ১২ স্বর্ণের বারসহ যুবক আটক আদালতের ভেতরে ট্রাম্প, বাইরে শরীরে আগুন দিলেন কে এই ব্যক্তি? এবার পাগলা মসজিদের দানবাক্সে মিলল ২৭ বস্তা টাকা ভোট দেওয়াটা আসলে একজন নাগরিকের কর্তব্য:রজনীকান্ত
/

নেত্রকোনা চুরির অপবাদে কিশোর নির্যাতন, ইউপি সদস্যসহ আটক ২

নেত্রকোনা প্রতিনিধি
নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় চুরির অপবাদে কিশোরকে নির্যাতনের অভিযোগে স্থানীয় ইউপি সদস্য সবুজ মিয়া ও স্থানীয় মাতব্বর আবু তাহেরকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করেছে কেন্দুয়া থানার পুলিশ। শনিবার তাদের আদালতে চালান করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কেন্দুয়া থানার ওসি আলী হোসেন।

এর আগে চুরির অপবাদে গ্রাম্য সালিশে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া ও জরিমানা আদায়ের অভিযোগ তুলে শুক্রবার রাতে কিশোরের মা বাদী হয়ে ইউপি সদস্য ও গ্রাম্য মাতব্বরসহ ছয়জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত কয়েক জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের সরাপাড়া গ্রামের দিনমজুর বাকপ্রতিবন্ধী আব্দুস সালাম ও নুরেজা আক্তারের ছেলে আবু লায়েছের বিরুদ্ধে মোবাইলের মিনিট কার্ড চুরির অভিযোগ তোলে স্থানীয়রা। এ ঘটনায় গ্রাম্য সালিশে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া ও জরিমানা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া যায় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ গ্রাম্য মাতব্বরের বিরুদ্ধে। পরে শুক্রবার এমন একটি খবর ফেসবুকে ভাইরাল হলে স্থানীয় প্রশাসন কিশোরকে দেখতে তার বাড়ি যায় এবং চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

কিশোরের মা নুরেজা জানান, গত মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে এক আত্মীয়ের অসুস্থতার খবর নিতে মোবাইলে রিচার্জ করতে মিনিট কার্ড কেনার জন্য সরাপাড়া বাজারে ছেলেকে পাঠান। ছেলে কার্ড কেনার জন্য শাহীন মিয়ার দোকানে গিয়ে ডাকাডাকির সময় পেছন থেকে চা দোকানি মতিউর তাকে ঝাপটে ধরেন। পরে মতিউর বাজারের লোকজনকে ডেকে আনেন।

এরপর রাতেই বর্তমান ইউপি সদস্য সবুজ মিয়া, সাবেক ইউপি সদস্য হাদিস মিয়া, আবু তাহেরসহ আরও কয়েকজন রাতভর ছেলেকে নির্যাতন করেন। আমার ছেলেকে খুন করে বস্তায় ভরে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিলে সে চুরির কথা স্বীকার করতে বাধ্য হয়। পরদিন বুধবার সকালে সবুজের সভাপতিত্বে ব্যবসায়ী ও গ্রামের মাতব্বররা বাজারে সালিশ বৈঠকে বসে বিচারে তারা আমার ছেলের মাথা ন্যাড়া করে ১০টি বেত্রাঘাত ও দুই হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

এদিকে এই ঘটনাটি শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে কেন্দুয়া থানার ওসি এবং ইউএনও কিশোরের বাড়িতে যান। কিশোরকে চিকিৎসা করাতে কেন্দুয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান জানান, আমি চিকিৎসা করাতে ময়মনসিংহ ছিলাম। খবর নিয়েছি ছেলেটি চুরি করে। এখন এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাবেরী জালাল বলেন, বিষয়টি শোনার পর ওসিকে সঙ্গে নিয়ে আমি ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করি। স্থানীয়রা কয়েকজন জানায় চুরির বিষয়টি। কিন্তু কিশোরকে মারধরের বিষয়টি ঠিক হয়নি। তাই এ ব্যাপারে যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী
হলুদ সাংবাদিকতা প্রতিরোধ ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা শীর্ষক সুনামগঞ্জে গণমাধ্যমকর্মীদের নিয়ে কর্মশালা
আফগানিস্তানে তুমুল বর্ষণে নিহত আরো ২৯
নিউইয়র্কে আদালতের সামনে গায়ে আগুন দেওয়া ব্যক্তির মৃত্যু
গরমে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাসও বন্ধ ঘোষণা
লাইভ সংবাদ পাঠের সময় গরমে অজ্ঞান সংবাদ পাঠিকা

আরও খবর