বৃহস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৪.০৫°সে
সর্বশেষ:
বাংগালহালিয়া আওয়ামীলীগ অংগসংগঠনের উদ্যােগের জননেত্রী শেখহাসিনা শুভ জন্ম দিন পালিত খুলনা আড়ংঘাটা থানাধীন তেলিগাতী শারোদিয় দূর্গপূজা উপলক্ষে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি কমিটির আলোচনা সভা অনুষ্ঠীত নিউইয়র্কে ইমিগ্র্যান্ট ডে অ্যান্ড ট্রেড ফেয়ার অনুষ্ঠিত আগাম মিষ্টি খেজুর রস সংগ্রহের প্রস্তুতি দুই এসএসসি পরীক্ষার্থীর মারামারি, আহত ৩০ বিদেশি কর্মীদের ভিসা নবায়নের সিদ্ধান্ত মালয়েশিয়ার মোহাম্মদপুরে তিনটি ১৪ তলা ভবন নির্মাণ করবে সরকার চীনে রেস্টুরেন্টে আগুন, নিহত ১৭ চোরাচালান প্রতিরোধ এবং বিভাগীয় আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় কেএমপি’র কমিশনার মালয়েশিয়ায় কংক্রিট কেটে বের করা হলো বাংলাদেশির লাশ ১০ বিভাগীয় শহরে গণসমাবেশ করবে বিএনপি প্রধানমন্ত্রীর ৭৬ তম জন্মদিন উপলক্ষে শ্রীপুরে স্বাবলম্বী নারীদের সংবর্ধনা প্রদান

সুনামগঞ্জের আলোক বাতি ।। সাংবাদিকতার এক দিকপাল হাসান শাহরিয়া

একে একে নিভে যাচ্ছে সুনামগঞ্জের সব আলোক বাতি। নক্ষত্ররাজির হচ্ছে পতন। হাজার বছরে জন্মেনা এক হাসান শাহরিয়ার।
-হাসান শাহরিয়ার এক কিংবদন্তি। এক ইতিহাস। এক নক্ষত্র। আমার এক প্রিয় মানুষ। যিনি ছিলেন আমার কাছে অতিমানব। খুব সাধারন কিন্তু অসাধারন। সাংবাদিকতার এক দিকপাল।
এই মানুষের সাথে আমার তেমন কথাবার্তা নেই। যখন আমি ছোট তখন উনি শহরের বাইরে। বয়সের পার্থক্য দুরত্বের আরেক কারন।
কয়েকদিন আগে উনার সাথে যোগাযোগটা গভীর হয়। একটা গ্রন্থ সম্পাদনায় হাত দিয়েছি। উনার লেখার প্রয়োজন। কারনটা তাই। আরো অনেকের লেখা সংগ্রহ করেছি। উনার লেখা না হলে অসম্পূর্ণ থেকে যায়। অনুরোধটা উনি ফেলতে পারেননি। অসুস্থতার কারণ দর্শালেন। ঢেকি গিলতে হলো। ইদানিং লেখালেখি তার প্রায় বন্ধ। কারো অনুরোধে লিখছেন না। শরীর মন কিছু অনুকুলে নয়। তবে আমার জন্য লিখবেন। দায়িত্ববোধ থেকে । আমাকে খুশী করতে নয়। লিখা দেবার প্রতিশ্রুতি পেয়ে আসস্থ হই।
শরীর তার চলছে না। মনের দিকদিয়ে শক্ত । সময়ে অসময়ে ফোন দেই। তাগাদা দেই। মোবাইলে টেক্সট দেই। নাছোড়বান্দা। কখনো ফোন ধরতে পারেন না। কিন্তু টেক্সট দেন। কারন ব্যাখ্যা করেন। এই গুণ অনেকের কাছে পাইনি। বাধ্য হয়ে একসময় অসম্পূর্ণ একটা লেখা ইমেইল করেন। ফিডব্যাক চান। লিখেন,
-‘লেখায় হাত দিয়েছি। শুরুটা ঠিক আছে কি না আমাকে জানিও।’
আমিতো অবাক। এতো বড়মাফের লেখক আমার মতো এক নগন্যের কাছে জানতে চান লেখাটা ঠিক আছে কি না। আমার কি দুঃসাহস আছে হা বা না বলি? ছোটকে বড় করে দেখা। অবহেলা না করে উৎসাহিত করা, অনুপ্রাণিত করার তার এই গুনটা আমাকে ভাবায় আর অবাক করে।
উনি বেশ কয়েকবার ইংল্যান্ড এসেছেন। এক শহরে জন্ম হলেও তার সাথে সামনা সামনি যা দেখা হয়েছে তা বেশীর ভাগ বিদেশের মাটিতে। ইংল্যান্ড এলে আমি খবর পেতাম। শ্রদ্ধাভাজন শাহগীর মামা খবরটা দিতেন। দু’জনের ভালো যোগাযোগ। ফ্লাই করার আগে কাউকে না হলেও মামাকে খবরটা দিতেন। মামা আমাকে জানাতেন।
১০ এপ্রিল শনিবার২০২১ সকাল ১১টায় ধূমকেতু থেকে ছিটকে পড়া এ উজ্জল উল্কাখন্ড হারিয়ে গেলো। খবরটা শুনে প্রিয় মানুষ্টার জন্য অন্তরটা ভিজে গেল। আত্মাটা কেঁদে উঠলো। আত্মীয় হিসাবে নয়। শহরের মানুষ হিসাবে নয়। উজ্জল এক নক্ষত্রে’র পতনের শব্দে।
নানা-নাতী সম্পর্কের কারনে ফোনে বা দেখা হলে খুনসুটি করতাম। অবয়বে গম্ভীর মনে হলেও তার একটা সুন্দর শিশুর মন ছিলো। তার সম্মন্ধে জানার আমার অনেক বাকী ছিলো। গত শতাব্দীর সত্তরের দশকে তিনি জাতীয় ‘দৈনিক ইত্তেফাক’ এ ছিলেন জানতাম। মাঝেমধ্যে উনার বরাবরে নিউজ পাঠাতাম। নিউজের সাথে ব্যক্তিগত কথা লিখতাম। কখনো ছাপা হতো। কখনো হতো না। এতটুকু আমার জানাশুনা।
১৪ সালের ২৫ শে এপ্রিল দেশে ছিলাম। ‘নিউজউইক-এ বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ, বিজয় এবং তারপর” এ নামে তার একটি বই পেলাম। উনার বড় ভাই এডভোকেট হোসেন তৌফিক উপহার দিলেন। বইটি পড়ে তার সম্মন্ধে অনেক জানলাম ।
আমেরিকার প্রখ্যাত আন্তর্জাতীক সংবাদ সাময়িকী ‘নিউজউইক’ এর বাংলাদেশ প্রতিনিধি হিসাবে তিন দশকের বেশী সময় তিনি কাজ করেছেন। ‘নিউজউইক’ সাময়িকীতে তার অজস্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। তার প্রতিবেদনে যেমন গত তিন দশকে বাংলাদেশের রাজনীতির উত্থান-পতন, বিশৃঙ্খলা, অস্থিরতা, সংঘাত ও কলহ এবং ওয়ান-ইলেভেন তথা সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিতর্কিত শাসনের বাস্তবচিত্র পাওয়া যায়, তেমনি অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতির সুস্পষ্ট ইঙ্গিত পরিলক্ষীত হয়। এছাড়া প্রাকৃতিক দূর্যোগ সহ অন্যান্য বহু আলোচিত বিষয়ের ওপর তার অসংখ্য প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।
‘নিউজউইক’এ তিনি কাজ করেছেন ২০১২ সালের ৩১ শে ডিসেম্বরে সাময়িকীটির মুদ্রন সংস্করণ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত। ‘নিউজউইক’এ বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত গুরুত্ব পূর্ণ লেখা নিয়ে এই গ্রন্থটি রচিত হয়েছে। স্বাধীনতা সংগ্রামকালে প্রকাশিত বিভিন্ন রচনা ও রিপোর্ট গুলি বলতে হয় এক অনন্য দলিল।
হাসান শাহরীয়ারের জন্ম সুনামগঞ্জ শহরের হাছননগরে। তিনি সুনামগঞ্জ সরকারী জুবিলী স্কুল থেকে ৬২ সালে মাধ্যমিক ও সুনামগঞ্জ কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। পরে করাচি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএ (অনার্স) এবং এমএ ডিগ্রী লাভকরেন। বর্ণাঢ্য জীবন-কাহিনির অধিকারি হাসান শাহরীয়ারে’র জন্মঃ ১৯৪৭ সালে। মৃত্যু সময়ে তার বয়স হয়েছিলো ৭৪ বছর। পিতা ছিলেন মরহুম মকবুল হোসেন চৌধুরী।
বাংলাদেশের সাংবাদিকতার ইতিহাসে হাসান শাহরিয়ার পরিচিত নাম। তিনি গত শতাব্দীর ষাটের দশকের প্রথমদিকে সাংবাদিকতা শুরু করেন। মুহাম্মদ আব্দুল হাই সম্পাদিত সুনামগঞ্জ ‘সুরমা’ পত্রিকায় তার সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি। সাংবাদিকতায় তিনি উচ্চতর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউট, কমনওয়েলথ প্রেস ইউনিয়ন এর ফেলো হিসেবে লন্ডন, কার্ডিফ, প্লেমাউথ, এডিনবরা প্রভৃতি স্থানে সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহন করেন। ঐ সময় তিনি অক্সফোর্ডের এলিজাবেথ হাউজ এবং ব্রাডফোর্ডের টেলিগ্রাফ এন্ড আর্গস পত্রিকার সাথে সংযুক্ত ছিলেন।
১৯৯৩ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে বার্লিন প্রেস ইন্সটিটিউট ও বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটীটিউট এর যৌথ উদ্যোগে প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ শীর্ষক এক কোর্সে যোগদেন। তিনি বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউট ,ফিচার এজেন্সি নিউজ নেটওয়ার্ক, এমআরডিআইএস সহ আরো কয়েকটি সংস্থার নিয়মিত প্রশিক্ষক ছিলেন।
তিনি কারাচিতে দৈনিক ‘ডন’ ও এক সাথে ‘ইত্তেফাকে’ কাজ করেন। ইত্তেফাকে একজন সংবাদ দাতা হিসেবে কাজ শুরু করে নির্বাহি সম্পাদক হয়ে অবসরে যান।
তিনি জাতীয় প্রেসক্লাব ও বৈদেশিক সংবাদদাতা সমিতি-ওকাব এর সভাপতি ছিলেন। পর পর দুই মেয়াদে( ২০০৩-২০১২) সুনামের সঙ্গে সাংবাদিকদের আন্তর্জতিক সংগঠন কমনওয়েলথ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন (সিজিএ) এর ইন্টারন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর ২০১২ সালে সিজিএ এর ইন্টারন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট অ্যামিরিটার্স নির্বাচিত হন। তিনি দুবাই-এর ‘খালিজ টাইম’ এবং ভারতের ‘ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’ ‘দৈনিক এশিয়ান এজ’ ‘দৈনিক ড্যাকান হেরাল্ড’ পত্রিকার বাংলাদেশের প্রতিনিধি ছিলেন।
তিনি তদানীন্তন পাকিস্তানের প্রথম সারির নেতাদের সাথে ঘনিষ্ট ভাবে মেলামেশার সুযোগ পান তাঁদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন,-মিয়া মমতাজ দৌলতানা, আব্দুল ওয়ালি খান, খান আব্দুল কাইয়ুম খান, নওয়াবজাদা নসরুল্লাহ খান, জুলফিকার আলী ভুট্টু, এয়ার মার্শাল আসগর খান (অবঃ) , নওয়াব আকবর বুগতি, গউস বকস বিজেঞ্জো, খায়ের বকস মারী, আতাউল্লা খান মঙ্গল, মাহমুদুল হক উসমানি,
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী, আতাউর রহমান খান, ফজলুল কাদের চৌধুরী, খান এ সবুর, মশিউর রহমান যাদু মিয়া, তাজুদ্দিন আহমদ, খন্দকার মুস্তাক আহমদ, এ এইচ এম কামরুজ্জামান প্রমুখ।
তিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অনেক নেতা ও ব্যক্তির সাক্ষাৎকার গ্রহন করেছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন হলেনঃ ভারতের প্রধানমন্ত্রী মিসেস ইন্দিরা গান্ধী, চন্দ্র শেখর, পি ভি নরসিমা রাও, কাশ্মিরি নেতা শেখ আব্দুল্লাহ, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টু, নওয়াজ শরীফ, বেনজীর ভুট্টু, প্রেসিডেন্ট জিয়া-উল-হক, পারভেজ মোশারফ। জাপানের প্রধানমন্ত্রী তশিকু কাইফু, কম্বোডিয়ার প্রিন্স নরোদম সিহানুক,নোবেল বিজয়ী মাদার তেরেসা, ক্রিকেট তারকা ইমরান খান।
তিনি অনেক আন্তর্জাতিক সেমিনারে অংশ গ্রহন করেন। সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য ১৯৯৬ সালে জালালাবাদ ইয়থ ফোরাম তাকে ‘একুশে পদক’ ও বাংলাদেশ ইন্টার রিলিজিয়ার্স ব্রাদার হুড এসোসিয়েশন পদক। শিলিগুড়ি (ভারত) উত্তর বঙ্গ নাট্য জগৎ তাকে বিশেষ ভাবে সম্মানিত করেছে। সিলেটের রাগিব-রাবেয়া ফাউন্ডেশন ২০১১ সালে তাকে একুশে সম্মাননা প্রদান করে।
ধর্মভীরু সদালাপি ও বন্ধু বৎসল হাসান শাহরিয়ার ২০০০ সালে হজব্রত পালন করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন একজন অকৃতদার।-
ইমানুজ্জামান মহী-
¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬¬
সুত্র-‘নিউজউইক’-এ বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ ,বিজয় এবং তারপর-হাসান শাহরিয়ার।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

নারীদের সম্মাননা দিয়ে শেষ হয়েছে প্যাটারসনের “উইমেন অফ উইজডম” নারী সম্মেলন
প্যাটারসনে শুরু হচ্ছে “উইমেন অফ উইজডম” শীর্ষক দুই দিন ব্যাপী নারী সম্মেলন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিউইয়র্কে আগমন উপলক্ষে নিউজার্সি স্টেট আওয়ামী লীগ-এর কর্মী সভা
মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘনায় প্যাটারসন নিবাসী নিহত দুই বাংলাদেশী তরুনের স্মরনে ১১ই সেপ্টেম্বর মিলাদ ও দোয়া মাহফিল
বর্ণিল আয়োজনে ভাদেশ্বর সোসাইটি নিউজার্সি ইনক্‘র বনভোজন অনুষ্ঠিত
উৎসবমুখর পরিবেশ ভাদেশ্বর এসোসিয়েশন অব নিউজার্সির বনভোজন ও মিলন ২০২২ অনুষ্ঠিত

আরও খবর


close